সোনাডাঙ্গা কেন্দ্রে ‘ইন্টারনেট নলেজ এন্ড ব্লগ রাইটিং ডেভেলপমেন্ট’ সভা অনুষ্ঠিত

Image0851

বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশীপ এডুকেশন সোসাইটি (বিএফইএস) কর্তৃক পরিচালিত সোনাডাঙ্গা আইসিটি এন্ড কমিউনিটি ক্লাইমেট কেয়ার সেন্টারের উদ্যোগে গত ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৫ইং তারিখ সকাল ১১টায় সোনাডাংগা আদর্শ পল্লীতে ইয়ুথ গ্রুপের সদস্যদের নিয়ে এক মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন অনণ্যা আক্তার। সভার আলোচ্য বিষয় ছিল ইন্টারনেট নলেজ ডেভেলপমেন্ট এবং ব্লগ রাইটিং।

সভায় ডাটা অ্যাসিসট্যান্ট নওরীন আক্তার ইন্টারনেট নলেজ ডেভেলপমেন্ট এবং ব্লগ লেখার উপর প্রাথমিক আলোচনা করে বলেন, ইন্টারনেট সম্পর্কে একটা ভুল ধারণা সব পরিবারে দেখা যাচ্ছে। যদি আমরা এটাকে ইতিবাচকভাবে নিতে পারি তাহলে এর মাধ্যমে বর্তমানে যেসব সুযোগ সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে যেমন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে ভর্তি, পরীক্ষার ফলাফল, চাকুরির আবেদন পত্র, সামাজিক যোগোযোগ সাইট এর মাধ্যমে আমরা নিজেদের উন্নতি করতে পারব। খুলনা শহরে অনেকে ওয়েবসাইট ব্যবহার করে ব্যবসা করছে। আউট সোর্সিং এর মাধ্যমে ঘরে বসে আয় করছে। আমরা এসব বিষয়ে খোঁজ খবর নিতে পারি।

সভায় সেন্টার ম্যানেজার দীপক ব্যানার্জী বলেন, আমাদের সবার ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে। জনগণের মত প্রকাশের স্বাধীনতা আছে কিন্তু যেসব বিষয় খারাপ তা নিয়ে মত প্রকাশ না করা ভাল। আমরা প্রথম যখন কাজ করতে এলাম আমাদের নিয়েও অনেক কথা বলা হয়েছিল কিন্তু আমরা কাজ করে দেখিয়েছি প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যেও ভাল কিছু করা যায়। ইন্টারনেটের ভাল ভাল দিকগুলি নিয়ে আমাদের কাজ করতে হবে তা হলে আমাদের উন্নয়ন হবেই। ব্লগ লেখার বিষয়টা আমার কাছেও নতুন। আমিও প্রথমে এ বিষয়ে বুঝতে পারিনি। এখানে এলাকার বিভিন্ন বিষয়, আমাদের কর্মসূচী নিয়ে নিজের মতামত লেখা যাবে। তবে এমন কিছু লেখা যাবে না, যা অন্যের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে, সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে।

ইয়ুথ সদস্য ফারজানা বলেন, ব্লগে লেখা ও ছবি পোষ্ট করা নিয়ে দেশের বিভিন্ন এলাকায় কিছু অনাঙ্কাখিত ঘটনা ঘটেছিল। এগুলি যেন না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। ব্লগ লেখা খুবই আনন্দদায়ক। আমরা কয়েকজন নিয়মিত লিখছি। অন্যান্য সেন্টারের ইয়ুথ সদস্যরাও লিখছেন। এটা নিয়ে একটা প্রতিযোগিতা হলে ভাল হয়।

পরিশেষে সভাপতি সভায় উপস্থিত হওয়ার জন্য সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে উক্ত আলোচনা সাভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।